কারাগার থেকে মুক্তি পেলেন বুয়েট শিক্ষার্থীরা

  বিশেষ প্রতিনিধি    03-08-2023    139
কারাগার থেকে মুক্তি পেলেন বুয়েট শিক্ষার্থীরা

সুনামগঞ্জ টাঙ্গুয়ার হাওরে ঘুরতে গিয়ে গত রোববার গ্রেপ্তার হন বুয়েটের সাবেক–বর্তমান ৩১ শিক্ষার্থীসহ মোট ৩৪ জন। তাঁদেরকে সন্ত্রাসবিরোধী আইনের মামলায় পরদিন সোমবার কারাগারে পাঠানো হয়। পরে আজ বুধবার বুয়েটের ৩১ শিক্ষার্থীসহ ৩২ জনের জামিন মঞ্জুর করেন আদালত। বিচারক মোহাম্মদ ফারহান সাদিক জামিন আবেদন মঞ্জুর করেন। একই মামলায় গ্রেপ্তার বাকি দুজনের বয়স কম হওয়ায় তাদের জন্য শিশু আদালতে জামিন চাইবেন আইনজীবীরা।

জামিনের পর কারাগার থেকে আজ বুধবার রাত ১০টায় মুক্তি পেয়েছেন বুয়েটের সাবেক–বর্তমান ৩১ শিক্ষার্থীসহ মোট ৩২ জন। রাত ৮টায় আদালত থেকে জামিনের কাগজ কারাগারে আসার পর আইনি প্রক্রিয়া শেষে তাঁদেরকে মুক্তি দেওয়া হয়। কারা কর্তৃপক্ষ প্রত্যেকের অভিভাবকদের কাছে তাঁদের তুলে দেন।

এর আগে বুধবার বেলা ১টায় সুনামগঞ্জের মুখ্য বিচারিক আদালতের বিচারক মোহাম্মদ ফারহান সাদিকের আদালতে বুয়েট শিক্ষার্থীদের পক্ষে অ্যাডভোকেট তৈয়বুর রহমান বাবুল ও আব্দুল হকসহ বেশ কয়েকজন আইনজীবী জামিন আবেদন করেন। আসামি পক্ষের আইনজীবীদের দীর্ঘ যুক্তি তর্ক শেষে মুখ্য বিচারিক আদালত বুয়েটের বর্তমান ২৪ জন, সাবেক ৭ জনসহ ৩২ জনের জামিন আবেদন মঞ্জুর করেন।

মুখ্য বিচারিক আদালতে পুলিশের পক্ষ থেকে জামিন না দেওয়ার জন্য ও বুয়েট শিক্ষার্থীদের বিষয়ে যেসব অভিযোগ আনা হয়েছে আরও অধিকতর তদন্তের জন্য আদালতের কাছে রিমান্ড আবেদন করা হলে আদালত রিমান্ড আবেদন নামঞ্জুর করেন।

বুধবার সকাল থেকেই আদালত প্রাঙ্গণে বুয়েট শিক্ষার্থীদের স্বজনরা হাজির হন। জামিনে কারাগার থেকে মুক্ত হওয়ার পর তাদের স্বজনরা আবেগাপ্লুত হয়ে পরেন।

বুয়েট শিক্ষার্থীদের আইনজীবী অ্যাডভোকেট তৈয়বুর রহমান বাবুল বলেন, ‘আমরা ন্যায় বিচার পেয়েছি এবং তাঁদের জামিন দিয়ে আদালত ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠার এক নজির স্থাপন করলেন।’

আমাদের সন্তানেরা রাষ্ট্রবিরোধী কাজে জড়িত নয়, বুয়েট শিক্ষার্থীদের স্বজনেরা আমাদের সন্তানেরা রাষ্ট্রবিরোধী কাজে জড়িত নয়, বুয়েট শিক্ষার্থীদের স্বজনেরা তিনি বলেন, এসব কোমলমতি শিক্ষার্থীরা দেশের সম্পদ। তাঁদেরেকে এমন কঠিন একটি মামলা থেকে জামিন দেওয়ায় আইনজীবীসহ সকল অভিভাবকেরা সন্তোষ প্রকাশ করেছেন।

অপর আইনজীবী অ্যাডভোকেট আব্দুল হক বলেন, আসামিরা দেশের মেধাবী শিক্ষার্থী। তাঁরা হাওরে ঘুরতে এসেছিল। পুলিশ শুধুমাত্র সন্দেহের বশবর্তী হয়ে এতজন মেধাবী শিক্ষার্থী ভবিষ্যৎ নষ্ট করতে পারেন না। তারা সবাই প্রতিষ্ঠিত পরিবারের সন্তান। সবাই মেধাবী শিক্ষার্থী এসব বিবেচনায় আদালত তাদের জামিন মঞ্জুর করেন।’

উল্লেখ্য, সরকারের বিরুদ্ধে ‘গোপন ষড়যন্ত্র ও জননিরাপত্তা বিঘ্নিত করার আশঙ্কায়’ গত রোববার বিকেলে টাঙ্গুয়ার হাওর থেকে ৩৪ জনকে আটক করা হয়। গতকাল সোমবার বিকেলে তাঁদের বিরুদ্ধে সন্ত্রাসবিরোধী আইনে পুলিশ বাদী হয়ে তাহিরপুর থানায় একটি মামলা করে। তাদের আদালতে হাজির করলে আদালত কারাগারে প্রেরণ করেন।

সারাদেশ-এর আরও খবর