কুড়িগ্রামের ডিসি হলেন কক্সবাজারের কৃতি সন্তান সাইদুল আরিফ

  বিশেষ প্রতিনিধি    24-11-2022    26
কুড়িগ্রামের ডিসি হলেন কক্সবাজারের কৃতি সন্তান সাইদুল আরিফ

কক্সবাজারের কৃতি সন্তান মোহাম্মদ সাইদুল আরিফ কুড়িগ্রামের জেলা প্রশাসক পদে নিয়োগ পেয়েছেন। বুধবার ২৩ নভেম্বর জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের মাঠ প্রশাসন-২ শাখার উপসচিব ভাস্কর দেবনাথ বাপ্পি স্বাক্ষরিত ৫৩৬ নম্বর স্মারকে জারীকৃত এক প্রজ্ঞাপনে কুড়িগ্রামের নতুন ডিসি মোহাম্মদ সাইদুল আরিফ (১৫৭২১) সহ বিসিএস (প্রশাসন) ক্যাডারের একই পদমর্যাদার ২৩ জন কর্মকর্তাকে দেশের বিভিন্ন জেলায় জেলা প্রশাসক পদে পদায়ন করা হয়।

কক্সবাজারবাসীর গর্বের ধন মোহাম্মদ সাইদুল আরিফ কক্সবাজার পৌরসভার ৭ নম্বর ওয়ার্ডের দক্ষিণ রুমালিয়ার ছরার সফল পিতা মরহুম আবু তাহের কুতুবী ও রত্নগর্ভা মর্জিয়া বেগমের কনিষ্ঠ পুত্র। অসাধারণ প্রতিভাসম্পন্ন মোহাম্মদ সাইদুল আরিফ ১৯৯২ সালে কক্সবাজার সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় হতে বিজ্ঞান বিভাগে কৃতিত্বের সাথে এসএসসি পাস করেন। ১৯৯৪ সালে তিনি চট্টগ্রাম কলেজ থেকে এইসএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হন প্রথম বিভাগ নিয়ে। দৃঢ় আত্মপ্রত্যয়ী মোহাম্মদ সাইদুল আরিফ চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ফরেস্ট্রি বিষয়ে ১৬ তম ব্যাচে অনার্স ও স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেন সফলতার সাথে প্রথম বিভাগে উত্তীর্ণ হয়ে।

এরপর ২৪ তম বিসিএস পরীক্ষায় অংশ নিয়ে দেশের সবচেয়ে অভিজাত ও সিদ্ধান্ত গ্রহনকারী ক্যাডার হিসাবে খ্যাত প্রশাসন ক্যাডেরে কৃতিত্বের সাথে উত্তীর্ণ হন-মেধাবী কক্সবাজারের গর্ব মোহাম্মদ সাইদুল আরিফ। তখন থেকে সরকারি চাকুরীতে যোগ দিয়ে আর পিছনে থাকাননি অদম্য ইচ্ছাশক্তি সম্পন্ন মোহাম্মদ সাইদুল আরিফ। শুধু সামনে পথচলা আর পথচলা। চাকুরী জীবনে সচিবালয়, বিভিন্ন দফতর ও মাঠ প্রশাসনের বিভিন্ন পদে দায়িত্ব পালন করেছেন সফলতার সাথে।

সরকারি চাকুরীর প্রথমে যশোর জেলা প্রশাসনে সহকারি কমিশনার হিসাবে যোগ দেন। পরে যশোর সদর উপজেলা ও চট্টগ্রামের পটিয়া উপজেলায় সহকারি কমিশনার (ভূমি) হিসাবে দায়িত্বপালন করেন। সৎ, দায়িত্বশীল ও নিষ্ঠাবান কর্মকর্তা মোহাম্মদ সাইদুল আরিফ কুমিল্লার লাঙ্গলকোট উপজেলার ইউএনও ছিলেন দীর্ঘদিন। সাজিয়েছেন লাঙ্গলকোট উপজেলাকে একটি আদর্শ ও উন্নত উপজেলা হিসাবে। দায়িত্ব পালন করেছেন, চট্টগ্রাম বন্দরের উর্ধ্বতন কর্মকর্তা হিসাবে।

মোহাম্মদ সাইদুল আরিফ ২০১৮ সালের ২ ফেব্রুয়ারী বাংলাদেশ সরকারের উপসচিব পদে পদোন্নতি লাভ করেন। পরে সমাজসেবা অধিদপ্তরের চট্টগ্রামের বিভাগীয় পরিচালক পদে সফলতার সাথে দায়িত্ব পালন করেছেন। ২০১৯ সালে অর্জন করেছেন শ্রেষ্ঠ বিভাগীয় সমাজসেবা কর্মকর্তা হিসাবে শুদ্ধাচার পুরস্কার। ২০২০ সালে ইংল্যান্ডের বিখ্যাত বিশ্ববিদ্যালয় University of Essex থেকে ‘ইন্টারন্যাশনাল ডেভলপমেন্ট’ বিষয়ে মাস্টার্স ডিগ্রী অর্জন করেছেন কৃতিত্বের সাথে। এছাড়াও মোহাম্মদ সাইদুল আরিফ দেশ বিদেশে অনেক গুরুত্বপূর্ণ প্রশিক্ষণ ও সেমিনারে অংশ নিয়ে তাঁর অভিজ্ঞতা, শিক্ষা ও দক্ষতার ভান্ডারকে করেছেন সমৃদ্ধ। পেশাদারিত্ব ও কর্মদক্ষতা দিয়ে জীবনের প্রতিটি কর্মস্থলে সফলতার উজ্জ্বল স্বাক্ষর রেখেছেন কক্সবাজারবাসীর প্রিয় সন্তান মোহাম্মদ সাইদুল আরিফ।

কর্মপাগল মোহাম্মদ সাইদুল আরিফ সর্বশেষ বর্তমানে অর্থ মন্ত্রনালয়ের অর্থ বিভাগের জ্যেষ্ঠ উপসচিব (বাজেট-১০) পদে দায়িত্ব পালন করছেন। সেখান থেকেই বুধবার তাঁকে কুড়িগ্রামের ডিসি পদে পদায়ন করা হয়।

সজ্জন, অমায়িক ও মিষ্টভাষী মোহাম্মদ সাইদুল আরিফ পরিবারে তিন ভাই, এক বোনের মধ্যে তৃতীয়। তাঁর বড় ভাই মোহাম্মদ সাইফুল আরীফ একটি আন্তর্জাতিক বেসরকারি সংস্থার উর্ধ্বতন কর্মকর্তা হিসাবে সদ্য অবসর নিয়েছেন। মেঝ ভাই মোহাম্মদ শফিউল আরিফ বিসিএস (প্রশাসন) ১৮ তম ব্যাচের একজন মেধাবী কর্মকর্তা। তিনি বর্তমানে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের উর্ধ্বতন নিয়োগ অধিশাখার যুগ্মসচিব পদে কর্মরত। মোহাম্মদ শফিউল আরিফও যশোর এবং লালমনিরহাটের সফল জেলা প্রশাসক ছিলেন। মোহাম্মদ সাইদুল আরিফ এর একমাত্র বোন আনিচুল আরিফা মুন্নী চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় হতে বিবিএ হিসাববিজ্ঞান এন্ড ইনফরমেশন সিস্টেম বিষয়ে অনার্স সহ মাস্টার্স ডিগ্রী অর্জন করেন ৩৩ তম ব্যাচে। আনিচুল আরিফা মুন্নী বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর পরিচালনাধীন চট্টগ্রাম হালিশহর আর্টিলারি সেন্টার এন্ড স্কুলের গার্নাস ইংলিশ মিডিয়াম স্কুলের সিনিয়র শিক্ষক হিসাবে ২০১০ সাল থেকে অদ্যাবধি কর্মরত রয়েছেন।

জীবনযুদ্ধে হার না মানা মোহাম্মদ সাইদুল আরিফ ২০০৮ সালের ১৫ মে জীবনসঙ্গিনী হিসাবে বেছে নিয়েছেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ৩৫ তম ব্যাচের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিষয়ের কৃতি শিক্ষার্থী অনার্স মাস্টার্স করা রেশমিন জান্নাত’কে। উচ্চ শিক্ষিতা রেশমিন জান্নাত একটি সরকারি কলেজের অধ্যাপক পদে কর্মরত। রেশমিন জান্নাত কক্সবাজারের পেকুয়ার মরহুম আবদুল মালেক ও মুজনে আরা বেগমের গর্বিত কন্যা।

বিসিএস (প্রশাসন) ক্যাডারের দাপুটে কর্মকর্তা মোহাম্মদ সাইদুল আরিফ এবং স্বনামধন্য অধ্যাপক রেশমিন জান্নাত দম্পতি আদিয়াত আরীফ আদিবা ও মাশিয়াত আরীফ মাহিবা নামক ২ ফুটফুটে কন্যা সন্তানের জনক ও জননী।

কুড়িগ্রামের জেলা প্রশাসক পদে পদায়ন করার পর মোহাম্মদ সাইদুল আরিফ মহান আল্লাহ’র কাছে শোকরিয়া জ্ঞাপন করে এজন্য তিনি প্রধানমন্ত্রী, জনপ্রশাসন মন্ত্রী, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব সহ সংশ্লিষ্ট সকলের প্রতি আন্তরিক কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন। তিনি তাঁর উপর সরকারের অর্পিত দায়িত্ব পালনে আল্লাহর অসীম রহমত ও সকলের দোয়া, আশীর্বাদ ও সহযোগিতা কামনা করেছেন।

মোহাম্মদ সাইদুল আরিফ বলেন, “আজকের এদিনে আমার মরহুম বাবা’কে ক্ষনে ক্ষনে মনে পড়ছে। বাবা জীবিত থাকলে তিনি কি যে খুশি হতেন, তা মনের অজান্তে উপলব্ধি করতেই আবেগে কোথায় যেন হারিয়ে যায়।” তিনি তাঁর মরহুম পিতার আত্মার মাগফেরাত এর জন্য সবার কাছে দোয়া চেয়েছেন।

প্রসঙ্গত, কক্সবাজারের মেধাবী মুখ মোহাম্মদ সাইদুল আরিফ হবেন-কুড়িগ্রামের ২২তম জেলা প্রশাসক। তিনি কুড়িগ্রামের বর্তমান জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ রেজাউল করিমের স্থলাভিষিক্ত হবেন।

1

সারাদেশ-এর আরও খবর