ভারত, ওমান ও আফগানিস্তানের বিপক্ষে বিশ্বকাপ বাছাইয়ের বাকি তিন ম্যাচের প্রস্তুতির জন্য জাতীয় ফুটবল দলের আবাসিক ক্যাম্প শুরু হচ্ছে আজ (সোমবার)।

ক্যাম্পে যে ৩৩ ফুটবলার ডেকেছেন কোচ জেমি ডে তারা সবাই এক সাথে যোগ দিতে পারছেন না প্রিমিয়ার লিগের চারটি ম্যাচ বাকি থাকায়। যাদের খেলা শেষ তারা প্রথম দিন উঠবেন হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টালে।

জাতীয় দলের ম্যানেজার ইকবাল হোসেন জানিয়েছেন, ‘প্রথম দিন আবাহনী ও মোহামেডানের ৫ ফুটবলার ক্যাম্পে উঠবেন। এর মধ্যে মোহামেডানের একজন খেলা শেষে বাড়ি যাওয়ায় তার ফিরতে সন্ধ্যা হতে পারে। আশা করি সন্ধ্যার মধ্যে এই ৫ জন ক্যাম্পে যোগ দেবেন।’

বসুন্ধরা কিংসের খেলাও নেই। সবচেয়ে বেশি ১০ জন ডাক পেয়েছেন এই ক্লাব থেকে। এ দলের খেলোয়াড়দের ক্যাম্পে যোগ দেয়ার কথা ছিল দোহায় গিয়ে। কিন্তু হঠাৎ এএফসি কাপ স্থগিত হওয়ায় কিংসের খেলোয়াড়রা ঢাকায়ই ক্যাম্পে যোগ দিতে পারছেন।

তবে কিংসের খেলোয়াড়দের ক্যাম্পে যোগ দিতে বিলম্ব হতে পারে। এএফসি কাপের জন্য রহমতগঞ্জের বিপক্ষে তাদের যে ম্যাচটি পিছিয়ে নেয়া হয়েছে ২২ জুন, সে ম্যাচটি এখন খেলা যায় কি না তার চেষ্টা করছে প্রিমিয়ার লিগের চ্যাম্পিয়নরা।

কোচ জেমি যে ঢাকায় ফিরছেন রাতে। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা অনুসারে জেমিকে হোটেলে ঢুকে কোভিড-১৯ পরীক্ষা করিয়ে ৫ দিন কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে। তারপর পুনরায় কোভিড টেস্ট করে নেগেটিভ হলে অনুশীলনে যোগ দেবেন।

ফুটবলারররা কোভিড-১৯ পরীক্ষা করিয়ে নেগেটিভ হয়েই যে যার ক্লাবের হয়ে প্রিমিয়ার লিগ খেলেছেন। পরীক্ষা করানোর পর দুই সপ্তাহ অতিক্রম হয়নি কারও। যে কারণে ক্যাম্পে ঢুকেই তাদের আবার পরীক্ষা করাতে হবে না। সবাই যোগ দেয়ার পর ১২ বার ১৩ মে পুরো দলের কোভিড-১৯ পরীক্ষা করানো হবে।

স্বাস্থ্যবিধির এই কার্যক্রমগুলো শেষ হতে চার-পাঁচদিন লাগবে। তাই ১৫ মে’র আগে মাঠের অনুশীলন শুরু হচ্ছে না ফুটবলারদের। এ সময়ে তারা হোটেলেই জিম আর সুইমিং সেশন করবেন।

৫-৬ দিনের মতো ঢাকায় অনুশীলন করে দল চলে যাবে কাতারে। খেলা শুরুর আগ পর্যন্ত সেখানে অনুশীলনের পাশপাশি দুটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলারও কথা আছে জেমি ডে’র দলের।

ক্যাম্পে ডাক পাওয়া ৩৩ ফুটবলার

বসুন্ধরা কিংস : আনিসুর রহমান জিকো (গোলরক্ষক), বিশ্বনাথ ঘোষ, রিমন হোসেন, মাসুক মিয়া জনি, বিপলু আহমেদ, মাহবুবুর রহমান সুফিল, মতিন মিয়া, তপু বর্মন, মোহাম্মদ ইব্রাহিম, তারিক কাজী।

সাইফ এসসি : রহমত মিয়া, রিয়াদুল হাসান, ইয়াসিন আরাফাত, জামাল ভূঁইয়া, আবু শাহেদ, ইমরান হাসান রিমন, ফয়সাল আহমেদ ফাহিম।

আবাহনী : শহিদুল আলম সোহেল (গোলরক্ষক), সোহেল রানা, সাদ উদ্দিন।

শেখ রাসেল কেসি : আশরাফুল ইসলাম রানা (গোলরক্ষক), মো. আবদুল্লাহ।

মুক্তিযোদ্ধা : মেহেদী হাসান, মেহেদী হাসান রয়েল, মো. ইমন।

চট্টগ্রাম আবাহনী : মানিক হোসেন মোল্লা, রাকিব হোসেন।

মোহামেডান : হাবিবুর রহমান সোহাগ, আতিকুজ্জামান।

উত্তর বারিধারা : সুমন রেজা, মিতুল মারমা (গোলরক্ষক)।

শেখ জামাল : রেজাউল করিম।

পুলিশ এফসি : মোহাম্মদ জুয়েল।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *