নগরীর হামজারবাগ এলাকার প্রায় ১৩/১৪ ভিক্ষুক, প্রতিবন্ধী ভাসমান লোকজন, গৃহকর্মী, নিম্নআয়ের হতদরিদ্র লোকের কাছ থেকে ২০০ টাকা করে নেয় সেভ এজ ইওর আর্ন (এসএওয়াইএ) নামে একটি সংস্থার প্রধান জান্নাতুল নাঈমা। কথা ছিলো, জমাকৃত টাকার বিপরীতে অনুদান ও ক্ষুদ্রঋণ দিবে কিন্তু মাসের পর বছর গেলেও মিলে না অনুদান কিংবা ঋণ এভাবে হয়রানির শিকার হন তারা।

তাই লোকজন সোমবার (২২ নভেম্বর) বিকেলে হামজারবাগে অবস্থিত ওই সংস্থার অফিসের সামনে জড়ো হয়ে বিক্ষোভ করেন ভোক্তভুগীরা। পরে তারা জান্নাতুল নাঈমাকে অবরুদ্ধ করে রাখলে পুলিশ এসে তাকে আটক করেন।

জানা গেছে, জান্নাতুল নাঈমা নিজেকে সেভ এজ ইওর আর্ন (এসএওয়াইএ) নামে একটি সংস্থার প্রধান হিসেবে নিজেকে দাবি করেন তিনি। হামজারবাগ এলাকার প্রায় ১৩/১৪ ভিক্ষুক, অসহায় লোকের কাছ থেকে ২০০ টাকা করে নেয় এই এনজিও কর্মকর্তা । শর্ত অনুসারে ঋণ ও অনুদান না পেয়ে উল্টো হয়রানিতে শিকার হন তারা। ফলে ভোক্তভুগীরা সোমবার বিকেলে ওই সংস্থার অফিসের সামনে জড়ো হয়ে বিক্ষোভ করেন। পরে তারা জান্নাতুল নাঈমাকে অবরুদ্ধ করে রাখলে পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে। পুলিশ তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাসে জনতা সেখান থেকে সরে যায়।

পাঁচলাইশ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সাদেকুর রহসান বলেন, গ্রেফতারকৃত জান্নাতুল নাঈমা তাদের থেকে ব্যাংকের মতো করে টাকা জমা নেন, এর বিপরীতে অনুদান ও ক্ষুদ্রঋণ দেওয়ার আশ্বাস দেন। কিন্তু মাসের পর বছর গেলেও তা দেওয়া হয় না। এনজিওটির সরকারি অনুমোদন নেই বলে ইতোমধ্যে আমরা জেনেছি।

এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রক্রিয়া চলছে। প্রতারণার সঙ্গে আরও যারা জড়িত তাদের আটকের চেষ্টা চলছে বলেও জানান তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *