আর্জেন্টাইনদের কাছে ফুটবলের সর্বকালের সেরা বলতে একজনকেই বোঝায়, তিনি দিয়েগো ম্যারাডোনা। নিজে দলকে বিশ্বকাপ জিতিয়েছেন। একসময় কাজ করেছেন কোচ হিসেবেও। তবে জীবনের শেষ ২৭ বছর দলকে কোনো শিরোপা জিততে দেখেননি তিনি। আজ বেঁচে থাকলে এই কিংবদন্তি হয়তো বড্ড খুশি হতেন।

ফুটবলের প্রতি ম্যারাডোনার অনুরাগ কতটা সেটা সকলেই জানেন। দলের খেলা থাকলেই তিনি হাজির হতেন স্টেডিয়ামে। সবসময় মনেপ্রাণে চাইতেন ভালো করুক আর্জেন্টিনা।

দীর্ঘ অপেক্ষার প্রহর পেরিয়ে ডি মারিয়ার গোলে ব্রাজিলকে ১-০ গোলে হারিয়ে কোপা আমেরিকার শিরোপা জিতেছে আর্জেন্টিনা। এর মাধ্যমে যেন পূরণ হয়েছে ম্যারাডোনার স্বপ্নও। তিনিও যে দলের হাতে শিরোপা দেখতে চাইতেন সবসময়।

মেসি, ডি মারিয়া, অ্যাগুয়েরো, নিকোলাস ওটামেন্ডি প্রত্যেকেই ছিলেন ম্যারাডোনার প্রিয় ছাত্র। নতুনদের পাশাপাশি আর্জেন্টিনার এবারের কোপা শিরোপা জয়ে এই পুরনোদের অবদান কম নয়। যেন দিয়েগোর শিষ্যদের নেতৃত্বেই জিতল আলবিসেলেস্তেরা।

হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে গতবছরের অক্টোবরে মারা যান ম্যারাডোনা। আর এক বছর বেঁচে থাকলে হয়তো প্রিয় দলের শিরোপা উৎসব নিজ চোখে দেখে যেতে পারতেন তিনি।

মর্ত্যলোকে না পারলেও স্বর্গ থেকে নিশ্চয় মেসিদের জয় দেখেছেন ম্যারাডোনা। হয়তো মুচকি হেসে বলেছেন, ছেলেগুলো অবশেষে জিতল বটে! ১৯৯৩ সালের পর আরেকটি ট্রফি জয়ে ম্যারাডোনার চোখে কি অশ্রু জমে ছিল? উত্তরটা না হয় অজানাই থাক।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *