লোহিত সাগরে ইরানের একটি মালবাহি জাহাজে হামলার ঘটনা ঘটেছে। বুধবার ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় হামলার ঘটনা নিশ্চিত করেছেন।

ইরানি সংবাদ সংস্থা তাসনিম জানায়, জাহাজটিতে লিম্পেট মাইন ব্যবহার করে হামলা চালানো হয়েছে। ইয়েমেনের কাছাকাছি উপকূলে জাহাজটি অবস্থান করছিল।

দুবাই ভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল অ্যারাবিয়া জানিয়েছে, ইরানের বিপ্লবী গার্ড বাহিনীর সঙ্গে জাহাজটির সম্পর্ক রয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানায়, এই হামলার ফলে জাহাজের ‘অল্প ক্ষতি’ হয়েছে। মঙ্গলবার স্থানীয় সময় ভোর ৬টার দিকে এই হামলার ঘটনা ঘটে।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র সাইদ খতিবজাদেহ বলেছেন, সাভিজ নামের এই জাহাজটি একটি বেসামরিক হাজাজ। ইন্টারন্যাশনাল ম্যারিটাইম অর্গানাইজেশনের (আইএমও) সঙ্গে এটি নিবন্ধিত ছিল। জাহাজটি লোহিত সাগরে ইরানের সহযোগি স্টেশন হিসেবে কাজ করে এবং জলদূশ্য বিরোধী সহযোগিতা প্রদান করে থাকে।

তাসনিমের খবরে বলা হয়, ‘বাণিজ্যিক জাহাজের এসকর্ট মিশনে পাঠানো ইরানি কমান্ডোদের সহযোগিতা দিতে গত কয়েক বছর ধরে লোহিত সাগরে অবস্থান করছে সাভিজ।’

গত ফেব্রয়ারির শেষ দিক থেকে ইরান ও ইসরায়েলের জাহাজে একাধিকবার হামলার ঘটনা ঘটেছে। এসব হামলায় দুই দেশ একে অপরকে দোষারোপ করে আসছে।

রয়টার্স জানিয়েছে, ইরানি জাহাজে সাম্প্রতিক এই হামলার দায় অস্বীকার করেছে ইসরায়েলি কর্মকর্তারা।

এদিকে জেরুজালেম পোস্ট জানিয়েছে, নিউ ইয়র্ক টাইমসকে এক মার্কিন কর্মকর্তা জানিয়েছেন, মঙ্গলবারের হামলা ইসরায়েল চালিয়েছে বলে যুক্তরাষ্ট্রকে নিশ্চিত করেছে দেশটি।

মঙ্গলবার থেকে ভিয়েনায় যুক্তরাষ্ট্র ও ইরান পরোক্ষ সংলাপে বসেছে। ২০১৫ সালের ইরানের পারমাণবিক চুক্তি পুনরায় কার্যকরের বিষয়ে আলোচনা চলছে এই সংলাপে। ইরান ও যুক্তরাষ্ট্র উভয় পক্ষ থেকেই এই আলোচনাকে ‘গঠনমূলক’ বলে উল্লেখ করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *