বঙ্গবন্ধুর জন্ম শতবার্ষিকী ও স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তিতে এবার কক্সবাজারে থাকবে ৭ মার্চ থেকে ২৬ মার্চ পর্যন্ত নানা কর্মসূচি। এই সময়ের মধ্যে পালন করা হবে ঐতিহাসিক ৭ মার্চ, ৮ মার্চ নারী দিবস, ১৭ মার্চ বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন ও জাতীয় শিশু দিবস, ২৫ মার্চ কালো রাত্রি ও ২৬ মার্চ স্বাধীনতা দিবস । এসব দিবসকে ঘিরে ব্যাপক কর্মসূূচি পালিত হবে। সকল সরকারি, বেসরকারি প্রতিষ্ঠান, রাজনৈতিক,সামাজিক , সাংস্কৃতিক ও পেশাজীবী সংগঠনকে এসব কর্মসূচি আওতায় রাখা হয়েছে। এবার বঙ্গবন্ধুর স্মৃতি বিজড়িত স্থানগুলোতে পৃথক পৃথক অনুষ্ঠান আয়োজনের সিদ্ধান্ত হয়। এছাড়া সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে প্রতিটি দিবস যথাযোগ্য মর্যদায় উদযাপনের জন্য নির্দেশনা দেয়া। গত বছর কোভিট ১৯ এর কারনে কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠিত না হলেও এবার যথাযোগ্য মর্যদায় কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠিত হবে।
২ মার্চ জেলা প্রশাসনের সম্মেলন কক্ষে ঐতিহাসিক ৭ মার্চ, ১৭ মার্চ জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন ও জাতীয় শিশু দিবস, ২৫ মার্চ কালোরাত্রি ও ২৬ মার্চ স্বাধীনতা দিবস উদযাপনের প্রস্তুতি সভায় এসব সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। সভায় এবার কক্সবাজারের সকল ভবনে ১৭ মার্চ ও ২৬ মার্চ আলোক সজ্জা করার প্রস্তাবনা দেয়া হয়। সে সাথে ক্যাটারিগরি ভাগ করে পুরস্কার ঘোষনা করা হয় । উক্ত সভায় সভাপতিত্ব করেন জেলা প্রশাসক মো. মামুনুর রশীদ । অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মো: শাহজান আলীর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সভায় আলোচনায় অংশ নেন জেলা পরিষদের নির্বাহী কর্মর্কতা হিল্লোল দাশ, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রফিকুল ইসলাম, বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুল আবছার, কক্সবাজার সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রামমোহন সেন, কক্সবাজার সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নাছির উদ্দিন কক্সবাজার প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মুজিবুল ইসলাম, জেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা সুব্রত, জেলা শিশু বিষয়ক কর্মকর্তা আহসানুল হক, জেলা ক্রীড়া সংস্থার সহ সভাপতি অধ্যাপক জসিম উদ্দিন, , সাংবাদিক ফজলুল কাদের চৌধুরী, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি সত্যপ্রিয় চৌধুরী দোলন, শিশু সংগঠক সাংবাদিক দীপক শর্মা দীপু।
সভায় উক্ত কর্মসূচি সমূহ বাস্তবায়নের জন্য বিভিন্ন উপ কমিটি গঠন করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *