সবকিছু ঠিক মতোই চলছে। দু-একদিন এদিক ওদিক হলেও প্রাথমিক দল ঘোষণাটা মোটামুটি নির্বাচকদের দেয়া তারিখ অনুযায়ীই হয়েছে। গত ৪ জানুয়ারি (সোমবার) বিকেল গড়ানোর আগেই সবাই জেনে গেছেন, ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ২৪ জনের ওয়ানডে আর ২০ সদস্যের টেস্টের প্রাথমিক দল।

এদিকে সময় বয়ে যাচ্ছে দ্রুত। ক্যারিবী দলের ঢাকা আসার সময়ও ঘনিয়ে এসেছে। আর মাত্র ৭২ ঘন্টা পর (১০ জানুয়ারি রোববার) রাজধানীতে আসবে ক্যারিবীয় ক্রিকেট দলের বহর। অল্প ক’দিনের কোয়ারেন্টাইন শেষে ১৮ জানুয়ারি বিকেএসপিতে প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবে ক্যারিবীয়রা।

পরে ২০ জানুয়ারি শেরে বাংলায় দিবারাত্রির প্রথম ওয়ানডে, ২২ জানুয়ারি একই ভেন্যুতে দ্বিতীয় ম্যাচ। এরপর ২৫ জানুয়ারি তৃতীয় ও শেষ ওয়ানডে হবে চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে।

সফকারীদের সঙ্গে টিম বাংলাদেশের প্রথম টেস্টও (৩-৭ ফেব্রুয়ারি) বন্দর নগরীর স্টেডিয়ামটিতে। ঐ টেস্টের আগে চট্টগ্রামের আরেক ঐতিহ্যবাহী ভেন্যু এম এ আজিজ স্টেডিয়ামে ৪ দিনের প্রস্তুতি ম্যাচও খেলবে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট দল। আর ১১ ফেব্রুয়ারি শেষ টেস্টের ভেন্যু হোম অব ক্রিকেট।

সে লক্ষ্যে আগামী ১০ জানুয়ারি থেকে শুরু হবে টাইগারদের আনুষ্ঠানিক প্রস্তুতি। তিন-চারদিন আগে থেকেই টেস্ট অধিনায়ক মুমিনুল হক, ওয়ানডে অধিনায়ক তামিম ইকবাল, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, মুশফিকুর রহীমসহ আরও কয়েকজন ব্যক্তিগত পর্যায়ে অনুশীলন শুরু করে দিয়েছেন।

এদিকে রোববার অনুশীলন শুরু হলেও ১৫ জনের ওয়ানডে স্কোয়াড চূড়ান্ত হবে আরও কয়েকদিন পর। আগামী ১৪ ও ১৬ জানুয়ারি শেরে বাংলায় নিজেদের মধ্যে দুটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবেন প্রাথমিক স্কোয়াডের খেলোয়াড়রা। সেখান থেকেই মূলত ঠিক করা হবে চূড়ান্ত স্কোয়াড।

তার আগে ওয়ানডে ও টেস্টের প্রাথমিক দলের সবাই একসঙ্গে হোটেল সোনারগাঁ প্যান প্যাসিফিকে জৈব সুরক্ষা বলয়ে থাকবেন। সেই জৈব সুরক্ষা বলয়ে ঢোকার আগে দলে ডাক পাওয়া সব ক্রিকেটার, কোচিং স্টাফ, সাপোর্টিং স্টাফ এমনকি তাদের সেবা ও সহযোগিতায় নিয়োজিত সোনারগাঁ প্যান প্যাসিফিকের স্টাফ এবং শেরে বাংলার মাঠ কর্মীসহ সবার কোভিড টেস্ট হবে। সেই টেস্টের ফল নেগেটিভ হলেই কেবল জৈব সুরক্ষা বলয়ে ঢোকার অনুমতি মিলবে।

বিসিবি সূত্রে জানা গেছে, এরই মধ্যে শেরে বাংলার মাঠকর্মী, জাতীয় দলের সাপোর্টিং স্টাফ আর হোটেল সোনারগাঁর স্টাফদের করোনার নমুনা নেয়া হয়েছে। আগামীকাল (৭ জানুয়ারি, বৃহস্পতিবার) করা টেস্ট হবে ক্রিকেটারদের। ওয়ানডে (২৪) আর টেস্টের (২০) প্রাথমিক দলে ডাক পেয়েছেন সর্বমোট ৪৪ জন। তবে করোনা টেস্ট হবে ৩০ জনের।

কারণ ঐ দুই বহরের ৪৪ জনের ভেতরে ১২ জন ওয়ানডে আর টেস্টের দুই দলেই আছেন। তারা হলেন তামিম ইকবাল, সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহীম, নাজমুল হোসেন শান্ত, মোহাম্মদ মিঠুন, লিটন দাস, ইয়াসির আলি রাব্বি, মেহেদি হাসান মিরাজ, তাইজুল ইসলাম, মোস্তাফিজুর রহমান, তাসকিন আহমেদ ও হাসান মাহমুদ।

এছাড়া শুধু ওয়ানডেতে আছেন ১০ জন; মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, সৌম্য সরকার, সাইফউদ্দীন, আফিফ হোসেন ধ্রুব, আলআমিন হোসেন, শরিফুল ইসলাম, নাসুম আহমেদ, পারভেজ হোসেন ইমন, শেখ মেহেদি হাসান ও রুবেল হোসেন। আর মুমিনুল হক, সাইফ হাসান, নুরুল হাসান সোহান, সাদমান ইসলাম, আবু জায়েদ রাহি, সৈয়দ খালেদ আহমেদ, নাইম হাসান ও ইবাদত হোসেন আছেন শুধু টেস্ট দলে।

বৃহস্পতিবার হয়ে যাবে এ ৩০ ক্রিকেটারের করোনা টেস্ট। তবে টেস্ট অধিনায়ক মুমিনুল ও অফস্পিনার নাঈম হাসান দলের বাকিদের সঙ্গে এখনই টিম হোটেলে জৈব সুরক্ষা বলয়ে প্রবেশ করবেন না। দুজনেরই ইনজুরিজনিত সমস্যা থাকায় ১০-১ তারিখে টিম হোটেলে যোগ দিতে পারেন তারা।

উল্লেখ্য, আগামী ৮ জানুয়ারি (শুক্রবার) ঢাকায় আসবেন হেড কোচ রাসেল ডোমিঙ্গো, তার স্বদেশি ফিল্ডিং কোচ রায়ান কুক ও পেস বোলিং কোচ ওটিস গিবসন। তাদেরও করোনা পরীক্ষা করেই সুরক্ষা বলয়ে প্রবেশ করানো হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *