রাজশাহীর ২২ বছর বয়সী ক্রিকেটার মোহাম্মদ সজীবের আত্মহত্যার খবর নাড়া দিয়েছে জাতীয় ক্রিকেট দলের তারকা ব্যাটসম্যান মুশফিকুর রহীমকে। সজীবের এমন সিদ্ধান্ত যেন কিছুতেই মেনে নিতে পারছেন না মুশফিক।

এ ঘটনার সূত্র ধরে মুশফিক সবাইকে মনে করিয়ে দিয়েছেন, ক্রিকেটের বাইরেও সবার একটা জীবন আছে। এছাড়াও মুশফিক জানিয়েছেন, সবার জন্যই নির্দিষ্ট পরিকল্পনা রয়েছে আল্লাহর, সবাই যেন সেটির ওপরেই আস্থা রাখেন।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে মুশফিক লিখেছেন, ‘আমরা সবাই ক্রিকেট খেলাটি ভালোবাসি। তবে একটা জিনিস মনে রাখবেন, ক্রিকেটের বাইরেও একটা জীবন আছে। আমাদের দেশের প্রতিভাবান খেলোয়াড় মোহাম্মদ সজীবের আত্মহত্যার খবরে আমি অত্যন্ত মর্মাহত।’

‘ঘটনা যাই হোক না কেন, আমি সবাইকে অনুরোধ করব আত্মহত্যার মতো সিদ্ধান্ত নেয়ার আগে নিজের পরিবার ও ভালোবাসার মানুষদের ব্যাপারে ভাবুন। আত্মহত্যা কখনও সমাধান নয়। আমাদের সবার জন্য আল্লাহর নির্দিষ্ট পরিকল্পনা রয়েছে। তার পরিকল্পনায় আমাদের বিশ্বাস রাখতে হবে।’

‘বিদেহী আত্মা ও তার পরিবারের জন্য দোয়া রইল। ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন।’

পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, সম্প্রতি সজীব বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপে খেলার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন। অংশগ্রহণের জন্য সব পরীক্ষাও দিয়েছিলেন সজীব। গত ১৩ নভেম্বর বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপে উত্তীর্ণ খেলোয়াড়দের তালিকা প্রকাশ করা হয়। ওই তালিকায় তার নাম না থাকায় হতাশ হয়ে পড়ে সে।

সবার অজান্তে শনিবার (১৪ নভেম্বর) গভীর রাতে নিজ ঘরের আড়ার সঙ্গে গলায় রশি পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করে সজীব। সকালে পরিবারের সদস্যরা বিষয়টি টের পেয়ে দরজা ভেঙে ঘরে ঢুকে তার ঝুলন্ত মরদেহ নামিয়ে আনেন। দুর্গাপুর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হাসমত আলী জানান, সজীব আত্মহত্যা করেছে বলে নিশ্চিত হয়েছে পুলিশ।

রাজশাহীর দুর্গাপুর থানার ঝালুকা গ্রামের বাসিন্দা সজীবুল ছিলেন রাজশাহী কলেজের ইতিহাসে তৃতীয় বর্ষের ছাত্র। তিনি বিসিবি অনূর্ধ্ব–১৫, ১৭ ও ১৯ দলের খেলোয়াড় ছিলেন। শাইনপুকুর ক্রিকেট ক্লাবের হয়ে ২০১৭-১৮ মৌসুমের ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে খেলেছেন তিনটি ম্যাচ। রাজশাহীর বাংলা ট্র্যাক ক্রিকেট একাডেমির ছাত্র ছিলেন সজীব। সেখানেই করতেন অনুশীলন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *