কক্সবাজারের চকরিয়ায় ছৈয়দুল আজম (৩৭) নামে এক যুবককে মারধর করে অপহরণের তিন ঘন্টা পর উদ্ধার করেছে পুলিশ। বুধবার ভোররাত ৫টার দিকে উপজেলার ফাাঁসিয়াখালী ইউনিয়নের দিগরপানখালী থেকে অপহরণ হয় ওই যুবককে। পরে খবর পেয়ে সকাল ৮টার দিকে চকরিয়া থানা পুলিশ ফাঁসিয়াখালী ইউনিয়ন পরিষদের দোতালায় তালাবদ্ধ একটি কক্ষ থেকে তাকে উদ্ধার করা হয়। আজম ওই ইউনিয়নের দিগরপানখালী গ্রামের আবুল হাশেমের ছেলে। সে পেশায় কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ার।

জানা যায়, বুধবার ভোররাতে দিগরপানখালী হাই স্কুল সংলগ্ন নিজের জমি থেকে স্থানীয় কিছু দূর্বৃত্ত গাছ কেটে নিয়ে যাচ্ছে এমন খবর পাওয়া যায়। ছৈয়দুল আজম খবর পেয়ে গাছ চোরদের গাছ নিতে বাঁধা প্রদান করেন। এসময় স্থানীয় হুমায়ুন, আলী আজম, রিদুয়ান ও মমতাজ সহ ৭-৮জনের সন্ত্রাসী তাকে মারধর করে সিএনজি অটোরিক্সাযোগে অপহরণ করে নিয়ে যায়।

পরে অপহরণকারীরা তাকে ফাঁশিয়াখালী ইউনিয়ন পরিষদের দোতালায় একটি কক্ষে আটকে রাখে। সকাল সাড়ে ৮টার দিকে চকরিয়া থানা পুলিশ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে খবর পেয়ে আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে চকরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।

আহত ছৈয়দুল আজম বলেন, হত্যার উদ্দেশ্যে আমাকে অপহরণ করা হয়। আমাকে গলা ও অন্ডকোষ চেপে ধরে অপহরণকারীরা হত্যার চেষ্টা চালায়। হাতুড়ি দিয়ে মারধর ও করা হয়।

আজম আরো বলেন, গত ২৭ সেপ্টেম্বর গাছ কাটার বিষয়ে থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়।

চকরিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ শাকের মোহাম্মদ জুবায়ের বলেন, ইউনিয়ন পরিষদ থেকে তাকে উদ্ধার করা হয়েছে। এ ব্যাপারে অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *