যশোরের বন্দর নগরী বেনাপোলে পেঁয়াজের বাজার মূল্য স্বাভাবিক রাখতে ও কৃত্রিম সঙ্কট রোধে ভ্রাম্যমান আদালতে ৩ জন আড়ত ব্যবসায়ীকে জরিমানা করা হয়েছে।

মঙ্গলবার সকালে শার্শা উপজেলা প্রশাসনের নির্বাহী কর্মকর্তা জনাব পুলক কুমার মন্ডলের নেতৃত্বে বেনাপোল কাঁচা বাজার এলাকায় এ ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালিত হয়।

অর্থ দন্ড প্রাপ্ত ব্যাবসায়ীরা হলো মিম বানিজ্য ভান্ডারের মালিক মোঃ শুকুরআলী (১০,০০০/-) ,মেহেরাব স্টোরের মালিক সুরুজ মিয়া (১৫,০০০/-) ও সবুর বানিজ্য ভান্ডারের মালিক সবুর খাঁন(৫,০০০/-)। ভ্রাম্যমান আদালতের পেশকার মিজানুর রহমান মূল্য বাড়িয়ে পেঁয়াজ বিক্রির দ্বায়ে ভ্রাম্যমান আদালতে ৩ জন অসাধু ব্যাবসায়ী কে অর্থদন্ড প্রদান সহ জরিমানা আদায়ের সত্যতা নিশ্চিত করেন।

বাজার মনিটারিং সময়ে উপস্থিত ছিলেন বেনাপোল পোর্টথানা পুলিশ,বেনাপোল বাজার কমিটি ও বেনাপোল পৌরসভার স্যানিটারি ইন্সেপেক্টের।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পূলক কুমার ম-ল জানান, ভারতের পেঁয়াজ রপ্তানী বন্ধ ঘোষণায় বেনাপোল বাজারের অসাধু ব্যাবসায়ীরা পেঁয়াজ বেশী দামে বিক্রি করছে এমন খবরে বাজার পরিদর্শনে যাওয়া হয়। ৩জন আড়ত ব্যাবসায়ীকে বেশী মূল্য পেঁয়াজ বিক্রির দ্বায়ে অর্থদন্ড প্রদান করা সহ কঠোর হোশিয়ারী দেওয়া হয়। সাথে সাথে শার্শা উপজেলার সকল ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও পৌর স্যানিটারি ইন্সেপেক্টর কে (পেঁয়াজের মূল্য স্থিতি রাখতে) বাজার মনিটরিং এর নির্দেশনা প্রদান করা হয়। শার্শা উপজেলা জুড়ে ভ্রাম্যমান আদালতের এ অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে তিনি আরো জানান। উল্লেখ্য ইতিপূর্বেও শার্শা উপজেলা প্রশাসনের চৌকস এ কর্মকর্তা করোন প্রাদুর্ভাব সহ লবন গুজব রোধে উল্ল্যেখযোগ্য ভূমিকা রেখেছিল।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *