কক্সবাজারের চকরিয়ায় অপহরনের ৩ মাস পর এক যুবতীকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। গত ৬ মে ২০২০সালে চকরিয়াউপজেলার ভেওলা মানিক চর (বিএমচর) ইউনিয়নের ৮ নং ওয়ার্ডের পাহাড়ীয়া পাড়া খাসমহাল কলোনী থেকে তাকে অপহরনের ঘটনা ঘটেছিল । চকরিয়া থানায় অভিভাবকের দায়ের করা এক অভিযোগের প্রেক্ষিতে ২ আগষ্ট রবিবার রাত ১১ টায় চকরিয়ার মাতামুহুরী পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ এসআই আমিরুল ইসলামের নেতৃত্বে পুলিশ চকরিয়া উপজেলার পুর্ববড় ভেওলা ইউনিয়নের দিয়ারচর এলাকার একটি ভাড়া বাসা থেকে ভিকটিম কে উদ্ধার করে। অপহরনকারীরা তাকে ধর্ষন করেছে বলে জানিয়েছে ভিকটিম।

ভিকটিমের বাবা মো: ভুট্টো জানান, চকরিয়া উপজেলার পুর্ববড় ভেওলা ইউনিয়নের ৪ নং ওয়ার্ডের চরপাড়ার মৃত আব্দুল্লাহর পুত্র ৩ সন্তানের জনক কুখ্যাত খুনি ও দাগী আসামী রাসেল (৩০) ও ৪/৫ জন মুখোশধারী স্বশস্ত্র সন্ত্রাসী, গত ৬ মে ভোর রাত সাড়ে ৪ টায় চকরিয়া বিএমচর ৮ নং ওয়ার্ড পাহাড়ীয়া পাড়া খাসমহাল কলোনী সংলগ্ন বাড়ী থেকে তার ১৭ বছর বয়সের মেয়েকে অপহরন করে নিয়ে যায়। অনেক খোঁজাখুঁজির পর খবর পান পার্শ্ববর্তী ইউনিয়ন পুর্ববড় ভেওলা দিয়ার চরের একটি ভাড়াবাসায় তাকে আটকিয়ে রাখা হয়েছে। বিষয়টি চকরিয়া থানাকে জানান তিনি। চকরিয়া থানার ওসি মোঃ হাবিবুর রহমানের নির্দেশে ২ আগষ্ট রবিবার রাত ১১ টায় মাতামুহুরী তদন্ত কেন্দ্র পুলিশের ইনচার্জ এসআই আমিরুল ইসলামের নেতৃত্বে পুলিশ তাৎক্ষনিক দিয়ার চরে অভিযান চালিয়ে ভিকটিমকে উদ্ধার করে। তবে পুলিশ এ ঘটনায় কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি। অপহরনের শিকার ভিকটিম জানায়, অপহরনকারী রাশেল অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে ৩ মাস ধরে তাকে ধর্ষন করেছে। এ ব্যাপারে চকরিয়া ধানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।

মাতামুহুরী তদন্ত কেন্দ্র পুলিশের ইনচার্জ এসআই আমিরুল ইসলাম ভিকটিম উদ্ধারের সত্যতা স্বীকার করে জানান, চকরিয়া থানার ওসি মোঃ হাবিবুর রহমানের নির্দেশে ২ আগষ্ট রবিবার রাত ১১ টায় অভিযান চালিয়ে দিয়ার চরের একটি ভাড়া বাসা থেকে ভিকটিমকে উদ্ধার করে তার বাবা-মা’র জিম্মায় দেয়া হয়েছে। তবে অপহরনকারীরা পালিয়ে যাওয়ায় কাউকে গ্রেফতার করতে পারেন নি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *