আগামীকাল ৩০ জুলাই বৃহস্পতিবার পবিত্র হজ। প্রতি বছর হিজরি বছরের শেষ মাস জিলহজের ৯ তারিখ আরাফাতের ময়দানে উপস্থিত হওয়ার মাধ্যমে এ হজ পালন করা হয়।

প্রাণঘাতী বৈশ্বিক মহামারি করোনার কারণে এবার সৌদি আরবসহ দেশটিতে বসবাসকারী বিশ্বের ১৬০ দেশের ১০ হাজার লোক পবিত্র নগরী মক্কার ঐতিহাসিক জাবালে রহমতের পাদদেশে আরাফাতের ময়দানে হজ পালনে জমায়েত হন। হাদিসের ঘোষণা-

‘আল-হাজ্জু আরাফাহ’ অর্থাৎ আরাফাহর ময়দানে উপস্থিত হওয়াই হজ।’

পবিত্র নগরী মক্কা থেকে প্রায় ২০ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত এ স্থানে একত্রিত হওয়া হজের অন্যতম রোকন। ৯ জিলহজ সূর্যাস্তের আগে আরাফাতের ময়দানে উপস্থিত না হলে হজই হবে না।

৯ জিলহজ জাবালে রহমত থেকে শুরু করে মসজিদে নামিরাসহ আরাফাতের ময়দানের চিহ্নিত সীমানার মধ্যে যে কোনো সুবিধাজনক স্থানে অবস্থান গ্রহণ করার মধ্য ‍দিয়ে হজ সম্পন্ন করে মুমিন মুসলমান।

লোক সংখ্যা কম হওয়ায় যথাযথ স্বাস্থ্য নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে সুন্দর ব্যবস্থাপনায় এবারের হজে অংশগ্রহণকারীরা মিনা থেকে আরাফাতের ময়দানে উপস্থিত হবেন।

এবার হজের খুতবা দেবেন ৯২ বছরের প্রবীণ শায়খ ড. আব্দুল্লাহ ইবনে সুলাইমান আল-মানিয়া। হজের খুতবা দেয়া ইমাম ও খতিবদের মধ্যে তিনিই সবচেয়ে বেশি বয়স্ক ব্যক্তি। হজের দিন মসজিদে নামিরায় মুয়াজ্জিন হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন শায়খ ইমাদ বিন আলি ইসমাইল। তিনি মসজিদের হারামের নিয়মিত মুয়াজ্জিন।

মহামারি করোনার কারণে এবারের হজ সবার জন্য স্বাচ্ছন্দ্য ও আরামদায়ক। এবারের অংশগ্রহণকারীরা শান্তিপূর্ণভাবেই পালন করবেন হজ। তালবিয়া ও তাকবিরের ধ্বনিতে মুখরিত হবে আরাফাতের ময়দান। এবারের হজে অংশগ্রহণকারীদের জন্য শুভ কামনা রইল।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *