ভারতে নতুন করে লকডাউনের মেয়াদ বাড়ালেও খাদ্য সংকট মোকাবেলায় আগামী ২০ এপ্রিল থেকে কৃষিকাজের অনুমোদন দেয়া হয়েছে।

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ কমাতে কেন্দ্রীয় দেশটির সরকার প্রথমে ২১ দিনের লকডাউন ঘোষণা দেয়। খবর এনডিটিভির।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির দাবি, ঠিক সময়ে লকডাউনের মতো কঠোর সিদ্ধান্ত নেয়ার ফলে বিশ্বের অন্য অনেক দেশের তুলনায় ভারতের করোনা পরিস্থিতি অনেকটাই ভালো।

ওই মারণ ভাইরাসের বিরুদ্ধে যুদ্ধ এখনও জারি, তাই ২১ দিনের লকডাউনের পরও আগামী ৩ মে পর্যন্ত লকডাউনের মেয়াদ বাড়ানোর ঘোষণা দেন মোদি।

তবে টানা লকডাউনের ফলে দেশের দিন আনি দিন খাই মানুষের দুরবস্থা চরমে পৌঁছেছে। গোটা ভারত তো অর্থনৈতিক মন্দার সম্মুখীন হয়েছেই, সেই সঙ্গে না খেতে পেয়ে মরার দশা হয়েছে দরিদ্র শ্রেণির মানুষের।

তাই এবার লকডাউনের নতুন গাইডলাইন প্রকাশ করেছে কেন্দ্র সরকার। এতে ২০ এপ্রিল থেকে মিলবে গ্রামীণ শিল্প, আইটি, ই-কমার্সে ছাড়।

এ ছাড়া যেসব এলাকায় করোনাভাইরাসের সংক্রমণ প্রায় ছড়ায়নি বললেই চলে, সেসব এলাকাকে লকডাউনের আওতার বাইরে রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার।

তবে মোদি সরকার স্পষ্টভাবে এটাও বলে দিয়েছে, করোনা সংক্রমণপ্রবণ হটস্পটগুলোত জারি থাকবে লকডাউনের কড়া নিষেধাজ্ঞা, কঠোর নজরদারি চালাবে প্রশাসন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *