মুসলিম বিশ্ব অন্য ধর্মাবলম্বীদের হয়ে নিজেরা ঝগড়া-বিবাদ করছে বলে মন্তব্য করেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী একে আব্দুল মোমেন। তিনি বলেছেন, ওআইসিকে আরো শক্তিশালী করতে হবে। বিশ্বজুড়ে যে সংঘাতের তীব্রতা আমরা দেখছি, তা বিবেচনা করে মুসলিম উম্মাহর অংশ হিসেবে বিরোধ মেটানোর ব্যবস্থা করতে হবে আমাদের। উত্তেজনা নিরসনে মধ্যস্থতা, সালিশি, যৌথ ক‚টনৈতিক পদক্ষেপসহ বিভিন্ন শান্তিপূর্ণ উপায়ে কাজ করতে হবে। গতকাল বুধবার রাজধানীর হোটেল কন্টিনেন্টালে ওআইসির বিস্তৃত সংস্কারের জন্য দ্বিতীয় বুদ্ধিদ্বীপ্ত (ব্রেইনস্টর্মিং) অধিবেশনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

ইসলামী সহযোগিতা সংস্থা (ওআইসি) ও বাংলাদেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় আয়োজিত এ অধিবেশনে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, মুসলিম বিশ্ব নিজেদের মধ্যে ঝগড়া বিবাদে লিপ্ত। আমরা অন্যের হয়ে নিজেদের মধ্যেই যুদ্ধ করি। এটা ঠিক নয়। ওআইসি এখন বেশ দুর্বল হয়ে পড়েছে। আমরা এটাকে আরও শক্তিশালী কীভাবে করতে পারি, সেটা নিয়েই আলোচনা করছি। তিনি আরো বলেন, পরিপূরক এবং কৌশলগত পন্থা অবলম্বন করে মুসলিম বিশ্বকে কাজ করতে হবে। শান্তি ও স্থিতিশীলতার সঙ্গে উন্নয়নও আমাদের অগ্রাধিকার হিসেবে বিবেচিত হলে অনেক সমস্যা স্বয়ংক্রিয়ভাবে সমাধান হবে। আমাদের অবশ্যই মনে রাখতে হবে যে, ওআইসি মুসলিম উম্মাহর আশা- আকাঙ্খার কণ্ঠস্বর। তিনি বলেন, আমি অবশ্যই গাম্বিয়া এবং পুরো মুসলিম ভ্রাতৃত্বকে অভিনন্দন জানাই। কারণ ওআইসি ও গাম্বিয়া অভিনব পদ্ধতিতে আইসিজেতে আইনি প্রক্রিয়ার মাধ্যমে রোহিঙ্গা সঙ্কট সমাধানের পদক্ষেপ নিয়েছে।

দুই দিনব্যাপী এ বৈঠকে ব্রেইনস্টর্মিং সেশনের ফলাফলের জন্য অনুসরণীয় প্রক্রিয়াটির রূপরেখার একটি খসড়া প্রস্তাবও চ‚ড়ান্ত করা হবে। এর আগে ওআইসির বিস্তৃত সংস্কার সম্পর্কিত প্রথম ব্রেইনস্টর্মিং সেশনটি জেদ্দায় ২০১৮ সালের অক্টোবর মাসে অনুষ্ঠিত হয়।

অনুষ্ঠান শেষে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন সাংবাদিকদের জানান, সিঙ্গাপুরে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত পাঁচ বাংলাদেশির মধ্যে একজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানিয়েছেন দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী ভিভিয়ান বালাকৃষ্ণান। গতকাল ফোন করে তাকে (পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোমেন) এ কথা জানানো হয়।

ড. মোমেন সাংবাদিকদের বলেন, করোনা আক্রান্ত পাঁচ বাংলাদেশি সিঙ্গাপুরে শ্রমিক হিসেবে কাজ করেন। তাদের মধ্যে ৩৯ বছর বয়সী এক শ্রমিকের অবস্থা আশঙ্কাজনক। তিনি আগে থেকেই কিডনিসহ বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত ছিলেন। তার নিউমোনিয়া হওয়ার পর পরীক্ষা করা হলে করোনার অস্তিত্ব পাওয়া যায়। তিনি ১৩ দিন ধরে আইসিইউতে আছেন। ওষুধও কাজ করছে না।
পররাষ্ট্রমন্ত্রী ভিভিয়ান বালাকৃষ্ণানের ফোন করার কথা জানিয়ে ড. মোমেন আরো বলেন, যে সিঙ্গাপুরে করোনাভাইরাস আক্রান্ত পাঁচ বাংলাদেশির চিকিৎসা চলছে। এ পাঁচজনের চিকিৎসা ব্যয় সিঙ্গাপুর সরকার বহন করছে।
বাংলাদেশিদের চিকিৎসার ব্যবস্থা করায় ধন্যবাদ জানিয়ে সিঙ্গাপুরের পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে আবদুল মোমেন জানান, সিঙ্গাপুরের চিকিৎসা ব্যবস্থা অনেক উন্নত। সেখানকার চিকিৎসার ওপর আমাদের আস্থা রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *