চট্টগ্রামের ঐতিহাসিক লালদীঘির মাঠে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের অঙ্গ সংগঠন চট্টগ্রাম যুবলীগের ৪৭ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর সভায় দু’পক্ষের মারামারির ঘটনা ঘটে। ফলে পণ্ড হয়ে গেছে আলোচনা সভা।

মঙ্গলবার (১২ নভেম্বর) বিকাল ৫টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

এ সময় নগরীর ষোলশহর ৭ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোবারক আলীসহ অন্তত ১০ জন আহত হয়েছে। আহতদের চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজে নিয়ে যাওয়া হয়েছে বলে জানা যায়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠান শুরু হলে সমাবেশস্থলে পৃথক মিছিল নিয়ে আসেন মহানগর যুবলীগের সদস্য ওয়াসিম উদ্দিন চৌধুরী ও যুবলীগ নেতা কাউন্সিলর মোবারক আলীর অনুসারীরা। সমাবেশস্থলে ঢোকার সময় তাদের মধ্যে ধাক্কাধাক্কি হয়। এর রেশ ধরে সমাবেশের মাঝখানে দুই গ্রুপ হঠাৎ চেয়ার ছোড়াছুড়ি করে। উভয় পক্ষ ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করে। এ সময় কাউন্সিলর মোবারক আলীসহ অন্তত ১০ জন আহত হন।

জানা যায়, চট্টগ্রামের লালদীঘি ময়দানে যুবলীগের ৪৭তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিষ্টার মহিবুল হাসান নওফেল। দীর্ঘ সোয়া এক ঘন্টা অনুষ্ঠান চলার পর হঠাৎ এক পাশ থেকে বিপুল পরিমান ইটপাটকেল নিক্ষেপ করা হয়। এক পর্যায়ে সমাবেশে থাকা বাঁশ, লাটি এবং চেয়ার দিয়ে একপক্ষ অপর পক্ষের সাথে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে।

এ সময় শিক্ষা উপমন্ত্রী তার নির্ধারিত বক্তব্য শেষ না করে ঘটনাস্থল ত্যাগ করে বলে জানায় উপস্থিত নেতাকর্মীরা।

চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের উপ-কমিশনার (দক্ষিণ) এসএম মেহেদী হাসান বলেন, লালদীঘি ময়দানে যুবলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে দুই পক্ষের মারামারিতে অন্তত ১০ জন হালকা আহত হয়েছে। পুলিশ দ্রুত পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

মহানগর যুবলীগের যুগ্ম-আহ্বায়ক ফরিদ মাহমুদ জানান, প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে এ ধরনের ঘটনা অনাকাঙ্ক্ষিত। আমরা ঘটনার ভিডিও ফুটেজ সংগ্রহ করেছি। জড়িতদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Comments are closed.