কথা বলার রেট বাড়লো বাজেটে

47

মোবাইল ফোনের মাধ্যমে প্রদত্ত সব ধরনের সেবার উপর বিদ্যমান সম্পূরক শুল্ক নতুন করে বাড়ানো হতে পারে। বর্তমানে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে নেওয়া সেবার উপর সম্পূরক শুল্ক ৫ শতাংশ থাকলেও তা বাড়িয়ে ১০ শতাংশ করা হতে পারে। গতকাল বাজেট ঘোষণাকালে অর্থবিলের মাধ্যমে এমন প্রস্তাব দিতে পারেন অর্থমন্ত্রী। অর্থ মন্ত্রণালয় ও এনবিআরের সংশ্লিষ্ট সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।
তথ্যপ্রযুক্তি খাতে চারটি উপকরণে আমদানি শুল্ক কমানো হয়েছে বাজেটে। সিম খোলার পিনের শুল্ক ২৫ শতাংশ থেকে কমিয়ে ১০ শতাংশ করা হয়েছে। একই হারে কমানো হয়েছে চার্জার কানেকটর পিনের শুল্ক।

ফলে মোবাইল ফোনে কথা বলা, এসএমএস (ক্ষুদে বার্তা) আদান-প্রদান ও এর মাধ্যমে ইন্টারনেট ব্যবহারের ব্যয় বেড়ে যাবে। এতে উচ্চবিত্তের পাশাপাশি মধ্যবিত্ত এমনকি মোবাইল ফোন ব্যবহারকারী গরীব মানুষেরও ব্যয় বেড়ে যাবে।

দেশে এখন মোবাইল ফোনের সচল সিম রয়েছে প্রায় ১৬ কোটি। অর্থাৎ ১৬ কোটি মোবাইলের সিম ব্যবহারকারীর এ ব্যয় বাড়বে। এর মধ্যে ইন্টারনেট ব্যবহার হচ্ছে প্রায় ৯ কোটি সিমে।

বর্তমানে মোবাইল ফোন ব্যবহারকারীকে ১৫ শতাংশ ভ্যাট (মূল্য সংযোজন কর) পরিশোধ করতে হয়। এর বাইরে আরো ৫ শতাংশ সম্পূরক শুল্ক ছাড়াও ১ শতাংশ উন্নয়ন সারচার্জ (মাশুল) পরিশোধ করতে হয়। সবমিলিয়ে গ্রাহকের উপর প্রকৃত করভার পড়ে ২১ শতাংশের উপরে।

অর্থাৎ বর্তমানে একজন মোবাইল ফোন গ্রাহক কথা বলাসহ মোবাইল ফোনের সিম ব্যবহার করে কোম্পানিগুলোর কাছ থেকে ১শ’ টাকার যে কোনো সেবা গ্রহণ করলে তাকে পরিশোধ করতে হয় ১২১ টাকার বেশি। নতুন করে আরো পাঁচ শতাংশ সম্পূরক শুল্ক যুক্ত হলে তা দাঁড়াবে ১২৬ কিংবা ১২৭ টাকার উপরে।