দুই বোনের সেই সেলুনে শেভ করলেন শচিন

14

সম্প্রতি শেভিং ব্লেড প্রস্তুতকারক কোম্পানি ‘জিলেট’র একটি বিজ্ঞাপন অনলাইনে ব্যাপক সাড়া ফেলেছে। যে বিজ্ঞাপনটি তৈরি করা হয় উত্তর প্রদেশের বানওয়ারি তলা ভিলেজের দুই বোনের সত্যিকারের জীবন কাহিনি অবলম্বনে।

২০১৪ সালে হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়েন তাদের বাবা। সংসার চলবে কীভাবে? সেলুনে তো মেয়ে মানুষের কাজ করার উপায় নেই। ভারতের মতো দেশে সেটা কখনই ভালোভাবে নেবে না সমাজ। দুই বোন নেহা আর জ্যোতি সমাজের সেই বাধা ভেঙে নেমে পড়েন জীবন সংগ্রামে। সেলুনের দায়িত্ব কাঁধে তুলে নেন তারা। সমাজের মানুষদের কটু কথা এড়াতে ছেলেদের মতো বেশ ধরেন, নামও পাল্টে করে নেন ছেলেদের মতো।

জীবন সংগ্রামের সাহসী সেই দুই বোনের ‘বার্বারশপ গার্লস’ সেলুনে এবার হাজির হয়েছিলেন ক্রিকেটের সর্বকালের সেরাদের একজন-মাস্টার ব্লাস্টার শচিন টেন্ডুলকার। শুক্রবার ইনস্টাগ্রামে একটি ছবি শেয়ার করেছেন তিনি, যেখানে দেখা যায় সেলুনে বসে শেভ নিচ্ছেন ভারতের সাবেক অধিনায়ক।

নেহা আর জ্যোতির সঙ্গে ছবি পোস্ট করার সঙ্গে সঙ্গে মজার একটি কথাও সবাইকে জানিয়ে দিয়েছেন শচিন। এমন ঘটনা নাকি তার জীবনে আগে কখনই ঘটেনি।

শচিন তার পোস্টে লিখেছেন, ‘আপনারা হয়তো জানেন না, আমি কখনও এমন কারও কাছ থেকে শেভ করিনি। আজ সেই রেকর্ড ভেঙে গেল। বার্বারশপ গালর্সদের সঙ্গে দেখা হওয়ার মতো বড় সম্মান পেলাম।’

সেলুনে নিজের কাজ শেষে নেহা আর জ্যোতিকে লেখাপড়া আর পেশাগত খরচের জন্য জিলেট বৃত্তির ব্যবস্থা করেন শচিন। অনলাইনে এই ভিডিও ছড়িয়ে পড়ার পর ৭ লাখের বেশি লাইক পড়েছে।