কক্সবাজারের টেকনাফ চাকমারকুল রোহিঙ্গা শিবিরে পৌঁছেছেন হলিউডের অভিনেত্রী ও জাতিসংঘ শরণার্থী বিষয়ক সংস্থার (ইউএনএইচসিআর) বিশেষ দূত অ্যাঞ্জেলিনা জোলি। সোমবার (৪ ফেব্রুয়ারি) দুপুর ১টা ৮ মিনিটের দিকে মেরিন ড্রাইভে করে তিনি রোহিঙ্গা শিবিরে পৌঁছান। তবে এই ক্যাম্পে কোনও সংবাদকর্মীদের ঢুকতে দেওয়া হয়নি।

ক্যাম্পের গেটে দাঁড়িয়ে থাকা আবদুল শুক্কুর নামে এক রোহিঙ্গা জানান, বড় বড় লোক আসে-যায়, কিন্তু আমাদের কি উপকার হয়? তারা রোহিঙ্গা স্বীকৃতি নিয়ে নিজ দেশে ফিরতে চান।

এর আগে, ২০১৭ সালের আগস্ট মাসে রাখাইনে মিয়ানমার বাহিনীর জাতিগত নিধনযজ্ঞ শুরু হওয়ার পর সংখ্যালঘু রোহিঙ্গারা দলে দলে প্রাণভয়ে কক্সবাজারে পালিয়ে আসতে থাকলে অ্যাঞ্জেলিনা জোলি রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শনের ঘোষণা দেন। তবে তার সফরসূচি চূড়ান্ত হতে এক বছরের বেশি সময় লেগে যায়।

অ্যাঞ্জেলিনা জোলি ২০১২ সালে জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক সংস্থার বিশেষ দূত হিসেবে নিযুক্ত হন। এরপর থেকে তিনি মানবাধিকার লংঘনের শিকার মানুষ বিশেষ করে নারীর প্রতি সহিংসতা ও যৌন নির্যাতনের প্রতিরোধে সোচ্চার ভূমিকা রাখছেন।

এর আগে গত বছরের ২১ মে কক্সবাজারের রোহিঙ্গা শিবির পরিদর্শন করেন মুম্বাইয়ের অভিনেত্রী, সাবেক বিশ্বসুন্দরী প্রিয়াঙ্কা চোপড়া। তিনি টেকনাফের বাহারছড়ার শামলাপুর মনখালী ব্রিজের পাশে অস্থায়ী রোহিঙ্গা শিবির এবং টেকনাফের হারিয়াখালীতে রোহিঙ্গাদের অনুপ্রবেশের পথ দেখেন। সেখানে শিশুদের সঙ্গে সময়ও কাটান। জাতিসংঘের শিশু তহবিলের (ইউনিসেফ) শুভেচ্ছাদূত হিসেবে বাংলাদেশে আসেন প্রিয়াঙ্কা চোপড়া।

Comments are closed.