পুতিনকে হোয়াইট হাউজে আমন্ত্রণ ট্রাম্পের

88

হোয়াইট হাউজে বৈঠকের জন্য রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনকে শুক্রবার ফোনালাপের সময় আমন্ত্রণ জানান মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। রুশ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা রয়টার্স এ খবর দিয়েছে।
রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সার্গেই ল্যাভরভ বলেছেন, গতমাসে ট্রাম্প ফোনের মাধ্যমে বেশ কয়েকবারই রাশিয়ার প্রেসিডেন্টকে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন। মনে হচ্ছে এবার তিনি এই আমন্ত্রণকে আনুষ্ঠানিক করতে চাইছেন।
যুক্তরাষ্ট্র এমন একটা সময়ে পুতিনকে আমন্ত্রণ জানালেন যখন দুই দেশের মধ্যে সিরিয়া, ইউক্রেন এবং ন্যাটো ইস্যুতে মারাত্মক উত্তেজনা চলছে। ট্রাম্প কয়েকবার বলেছেন, রাশিয়ার সঙ্গে সম্পর্ক উন্নয়ন তার দেশের জন্য মঙ্গলজনক।
রুশ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটের মাধ্যমে বার্তা সংস্থা রিয়া নভোস্তিকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে ল্যাভরভ বলেছেন, ‘মার্কিন প্রেসিডেন্ট এমনভাবে আমন্ত্রণ করেছেন, পুতিনের সঙ্গে হোয়াইট হাউজে সাক্ষাৎ করতে পারলে তিনি খুব খুশি হবেন। তারপরই হতে পারে পারস্পরিক সফর।’ অর্থাৎ ট্রাম্পও রাশিয়া সফর করতে চান।
তিনি বলেন, ‘এমন সফরের কথা কয়েকবার বলেছেন ট্রাম্প। সে কারণে আমরা যুক্তরাষ্ট্রের বন্ধুদের বলতে চাই যে, আমরা কোনা কিছু চাপিয়ে দিতে চাই না, আবার আমরা অভদ্র আচরণও করতে চাই না। আমরা বিষয়টি নিয়ে এমনভাবে এগুতে চাই যাতে ট্রাম্প তার প্রস্তাব বাস্তবায়ন করতে পারেন।’ কিন্তু মার্কিন সমালোচকরা মনে করেন যুক্তরাষ্ট্রসহ পশ্চিমা দেশগুলোর বিরোধিতা করছে রাশিয়া।
তিনি বলেন, ‘ফোনালাপে এবং টুইটে ট্রাম্প বেশ কয়েকবারই রাশিয়ার সঙ্গে বিভিন্ন ইস্যুতে বিদ্যমান মতদ্বৈততার অবসান করতে চান।
আমরা রাশিয়ার সঙ্গে সুসম্পর্ক বজায় রাখতে চাই। একেবারে সম্পর্ক না থাকার চাইতে এটুকু অন্তত ভালো। অন্যথায় এটা বোকামিই হবে।’
পুতিন যদি যুক্তরাষ্ট্র সফরে যান তাহলে গত বছরের জুলাই মাসের পর এটা হবে দুই নেতার মধ্যে সরাসরি প্রথম কোনো বৈঠক। জার্মানিতে অনুষ্ঠিত জি-২০ শীর্ষ সম্মেলনের অবকাশে এই দু নেতা একবার আনুষ্ঠানিক বৈঠকে বসেছিলেন। রয়টার্স