সরকার ১০ অক্টোবর পর্যন্ত নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট দিয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করতে পারবে। হাইকোর্টের দেয়া রায় ১০ অক্টোবর পর্যন্ত স্থগিত করে এ সময় দিয়েছে আপিল বিভাগ।

বুধবার প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার (এসকে) সিনহার নেতৃত্বে ছয় সদস্যের আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে শুনানি করেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম, অন্যদিকে উপস্থিত ছিলেন রিটকারী আইনজীবী ব্যারিস্টার হাসান এমএস আজিম।

এদিন রাষ্ট্রপক্ষের আবেদনের শুনানির সময় অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন, ‘এখনো কারেন্ট জাল দিয়ে মাছ ধরা হয়।’ জবাবে প্রধান বিচারপতি বলেন, ‘আমরা তো কারেন্ট জাল দিয়ে ইলিশ মাছ ধরা বন্ধ করে দিয়েছি।’

এরপর অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন, ‘আমার বাড়ি পদ্মার পাড়ে। আমি তো দেখি এখনো কারেন্ট জাল দিয়ে মাছ ধরা হয়।’

এর পরিপ্রেক্ষিতে প্রধান বিচারপতি বলেন, ‘আপনার বাড়ি পদ্মার পাড়ে তাই আপনি ইলিশ দেখেন, কিন্তু আমরা তো ইলিশের গন্ধই পাই না।’

এর আগে গত ১১ মে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট দিয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা সংক্রান্ত ২০০৯ সালের আইনের ১১টি ধারা ও উপধারাকে অবৈধ ও অসাংবিধানিক ঘোষণা করে হাইকোর্ট। একইসঙ্গে এই আইনে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট দিয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনাও অবৈধ ঘোষণা করা হয়।

এরপর গত ১ আগস্ট নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট দিয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা অবৈধ ঘোষণা করে হাইকোর্টের দেয়া রায় গত রবিবার পর্যন্ত স্থগিত করে আপিল বিভাগ।

Comments are closed.