বাংলাদেশে সরকারি প্রতিষ্ঠান, গণ-পরিবহন কিংবা অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের নাগরিক সেবার অনেক ক্ষেত্রে নারীদের জন্য সহায়ক পরিবেশ খুব একটা নেই, বলছে বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থার গবেষণা।

গণ-পরিবহন, হাসপাতাল ও পুলিশের সেবা-দান সহ ৫টি খাতের বিষয়ে এক গবেষণা শেষে বেসরকারি সংস্থা অ্যাকশন এইড বলছে, এসব সেক্টরে যারা নিয়মিত সেবা নিতে যাচ্ছেন তারা বলছেন, এর কোনটাই নারীবান্ধব নয়।

গবেষক দলের কর্মকর্তা ও অ্যাকশন এইড’র ম্যানেজার নুজহাত জাবিন বিবিসি বাংলাকে বলেন,”সবগুলোতেই কোনও না কোন যৌন হয়রানি বা সহিংসতার শিকার হচ্ছেন নারীরা”

গবেষণা কাজে নিয়মিত সেবা নিতে আসা নারীদের সাথে কথা বলা হয়।

“গণ-পরিবহন বিশেষ করে বাসে চলাচলের ক্ষেত্রে শহরাঞ্চলে মেয়েরা সবচেয়ে বেশি যৌন হয়রানির কথা বলেছেন। পুরুষ যাত্রীরাও সেই বিষয়টি ঘটতে দেখেছেন জানিয়েছেন” তিনি জানান।

নুজহাত জাবিন বলেন, “মেয়েরা তাদেরশরীরের স্পর্শ করা, ধাক্কা দেয়া, পেছন থেকে খারাপ মন্তব্য করা সহ নানা রকম আপত্তিকর আচরণের কথা তারা উল্লেখ করেছেন। অনেক সময় কাপড়-চোপড় নিয়ে মন্তব্য করা হয়”।

হাসপাতালে সেবা নেয়ার ক্ষেত্রে টিকেট কাটার সময় নানা হয়রানিমূলক মন্তব্য যেমন করা হয়, তেমনি পুরুষ হিসেবে অন্যরা বেশি সুযোগ পান বলে জানিয়েছেন তাদের।

“কিন্তু এসব অভিযোগ জানানোর কোন ব্যবস্থা বা সুযোগ নেই। ফলে এ বিষয়ে কেউ অভিযোগ করেন না” বলেন গবেষক নুজহাত।

ইউনিয়ন পর্যায়ে কমিউনিটি ক্লিনিকগুলোতেও সেবা পাওয়ার ক্ষেত্রে নারীরা পিছিয়ে আছে বলে জানাচ্ছে এই প্রতিষ্ঠানটির গবেষকরা।

Comments are closed.